বরিশালে বিএনপির ২৬ নেতকর্মীর নামে ‘নাশকতা’র মামলা: অতঃপর

0
43

বরিশালে :  মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা বিএনপির ২৬ নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত অনেকের বিরুদ্ধে ‘নাশকতা’র অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ১১ অক্টোবর সন্ধ্যায় উপজেলার চানপুর ইউনিয়নের আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আলতাফ হোসেন সিকদার বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেন।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিন খান প্রথমে মামলার বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরে তিনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়- গত ২৭ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১১টায় আসামিরা চানপুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা,আইন-শৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটায়। এ ছাড়া লোকজনের মধ্যে ত্রাস সৃষ্টির উদ্দেশ্যে রামদা, রড ও বাঁশের লাঠি সহকারে বৈঠকে মিলিত হয়। একপর্যায়ে নাশকতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে আসামিরা সরকারের নির্মিত ৩ কিলোমিটার সাপ্লাই পানির পাম্প বিকল করে দেয়।

কিন্তু ইউনিয়নের কোথাও পানি সাপ্লাইয়ের লাইন নেই বলে জানিয়েছেন চাদপুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা বাহাউদ্দিন ঢালী। এ ছাড়া স্থানীয় লোকজনও পানি সাপ্লাইয়ের লাইন না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে নাশকতার অভিযোগকে ‘কাল্পনিক’ ঘটনা উল্লেখ করে দায়েরকৃত মামলার বিষয়ে স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য বরিশাল জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ বলেন, ‘আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির নেতাকর্মীরা যাতে এলাকায় অবস্থান করতে না পারে, সেজন্যই মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে।

’ দায়েরকৃত মামলার ১৩ নম্বর আসামি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ফিরোজ জানান, তিনি গত তিন বছর ধরে ঢাকায় স্থায়ীভাবে ব্যবসা করছেন। পরিবার-পরিজন নিয়েই এখানে বসবাস করছেন। মামলার বাদী চানপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আলতাফ সিকদার মামলার কথা স্বীকার করেন। কিন্তু এজাহারের অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে ‘ব্যস্ত আছি’ বলে মোবাইলের সংযোগ কেটে দেন। পরে বেশ কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি আর ফোন রিসিভ করেননি। পানি সাপ্লাইয়ের লাইন না থাকা সত্ত্বেও মামলার এজহারে কীভাবে তা লিপিবদ্ধ হলো জানতে চাইলে মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিন খান বলেন, ‘পানি সাপ্লাইয়ের লাইন আছে।’

কিন্তু স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা, ইউপি সদস্য এবং জনগণ বলছেন- পানি সাপ্লাইয়ের লাইন নেই। এমন বরাত দিয়ে পুনরায় জানতে চাইলে ওসি বলেন,‘ তারা যদি বলেন নেই, তাহলে আমার কি করার আছে?’ বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) সাইফুল ইসলাম জানান, ‘কাল্পনিক মামলা দায়েরের কোনো সুযোগ নেই। তবে দায়েরকৃত মামলাটির খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

CAPTCHA