নগরীর অপ্রতিরোধ্য মাদক ব্যবসায়ী চকেরপুলের পরশ

0
112

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ অপ্রতিরোধ্য মাদক ব্যবসায়ী বরিশাল নগরীর চকেরপুল এলাকার বাসিন্দা ওমর ফারুক পরশ। পিতার নির্মিত বহুতল ভবনের ৩য় তলায় নিচ কক্ষে বাস করেন তিনি।

নিজে মাদক সেবনের পাশাপাশি দেদারছে বিক্রি করে আসছেন। তার স্ত্রী এই ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগও রয়েছে। প্রায় ৩ বছর পূর্বে তৎকালীন মেট্রো ডিবি পুলিশের সহকারী কমিশনার ভাস্কর সাহা অভিযান চালিয়ে তার বাসা থেকে ২১পিস ইয়াবাসহ ওমর ফারুক পরশকে গ্রেফতার করেছিলেন। ঐ মামলায় দীর্ঘদিন কারাগারে থেকেছেন পরশ।

এর পরেও তার মাদক সেবন ও ব্যবসা বন্ধ হয়নি। প্রভাবশালী এক ধনকূপের ব্যক্তি পরশের নিকট স্বজন হওয়ায় মাদক বিক্রি ও সেবন করলেও অনেকেই দেখলেও না দেখার ভান করে থাকেন। প্রথম ও ২য় স্ত্রী চলে যাওয়ার পরে ৩য় স্ত্রী নিয়ে নিজ কক্ষে মাদকের স্বর্গ রাজ্য তৈরী করেছেন।

২দিন আগে পরশের মাদক বিক্রি নিয়ে পাশের বাড়ির মালিকের সাথে তুমুল বাগ বিতান্ডা হয়েছে। গত ২দিন আগে সন্ধ্যা ৭টার দিকে পরশের নিকট চকেরপুলের বাসায় মাদক কিনতে যান নগরীর ফকির বাড়ী রোড এলাকার বাসিন্দা এক মাদক সেবনকারী।

পরশের নিকট থেকে মাদক ক্রয় করার সময় পাশের বাড়ির মালিক তার ঘরের সামনে বসে মাদক বিক্রিতে চরম আপত্তি জানায়। এক পর্যায়ে তাদের সাথে চরম বাগ বিতান্ডা হয়। খোজ নিয়ে জানা যায়, বরিশাল মাদকের বড় একটি সিন্ডিকেটের সাথে পরশের প্রায় ১ যুগের গভীর সম্পর্ক রয়েছে।

তাদের নিকট থেকে ইয়াবা, ফেন্সিডিল এনে নিজের কক্ষে রেখে পরশ তার নিজস্ব সেবকনকারীদের নিকট ঘরে বসে খুচরা বিক্রি করে থাকে। ঘনবসতিপূর্ন জমজমাট ব্যবসায়িক এলাকা হওয়ায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চকেরপুলের ঐ এলাকায় শত শত লোক ব্যবসায়িক কাজকর্ম করে থাকেন।

নিচ তলায় দু পাশে বিভিন্ন মালামালের আড়ৎ থাকায় এবং মালামাল উঠা নামা করায় দুর দুরন্ত থেকে ক্রেতা বিক্রেতাদের সব সময় ভীড় জমে থাকে ঐ এলাকায়। এই সুযোগে তার নিজস্ব¡ বাসার ৩য় তলায় বসে মাদক বিক্রি সহজতর হয়েছে। কারন অপরিচিত লোকজনের যাতায়াত ঐ এলাকায় বেশি। যার ফলে নিরবিচ্ছন্ন পর্যবেক্ষন না করলে ক্রেতা সনাক্ত করা কঠিন হয়ে যায়।