নলছিটির ভরতকাঠীর হিন্দুশূন্য হাজরা বাড়িটি এখন গাঁজা বাড়ি

0
108

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ দপদপিয়া ইউনিয়নের ভরতকাঠী গ্রামের হিন্দুশূন্য হাজরা বাড়িটি এখন গাঁজা বাড়ি হিসেবে খুব জনপ্রিয়। এই গাঁজা বাড়িতে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বসে গাজা ও ইয়াবার জমজমাট আসর। যার নিয়ন্ত্রক বড় গাঁজা বাবা হিসেবে পরিচিত মহিউদ্দিন আর ছোট গাঁজা বাবা তানজিল। উল্লেখ্য যে, গাঁজা সেবনের অপরাধে মহিউদ্দিন র‌্যাব কর্তৃক লাঞ্ছিত হয়েছেন। আর তানজিল নেশার টাকার জন্য চুরি, ছিনতাই, চাঁদাবাজীর মত গুতর অপরাধের সাথে জড়িত। তানজিল নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ভরতকাঠি গ্রামের আক্কেল মিস্ত্রির ছেলে সমীরণের কাছে চাঁদা দাবী করে।

সে চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে যার ফলে আক্কেল মিস্ত্রির স্ত্রী বাদী হয়ে নলছিটি থানায় চাঁদাবাজী মামলা দায়ের করেছিলেন। এভাবে আবার নেশার জন্য ভরতকাঠি গ্রামের শাহজাহান মীরের ছেলে ইমরানের কাছে চাঁদা দাবী করলে সে দিতে অস্বীকৃতি জানায় ফলে তাকেও মারধর করে। ইমরানের ভাই সোহাগ নলছিটি থানায় চাঁদাবাজী মামলা দায়ের করে যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। নেশার টাকার জন্য তানভীর তার আপন ভাইয়ের মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে যা স্থানীয় বাসিন্দারা অবগত। তানজিলের কারণে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। মহিউদ্দিন ও তানজিলের রয়েছে মাদক স¤্রাজ্য। এদের কারণে যুব সমাজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে।

এদের স¤্রাজ্যে বজলু হাওলাদার (হাঁস বজলু), রাজ লোকমান মোল্লা, করাত সোহাগ মোল্লা, সালাম সিকদার, রুজভেল, নান্টুসহ আরো অনেকে। সকলের একটাই দাবী এরা কিভাবে মাদক সংগ্রহ করে? এদের ব্যাপারে প্রশাসন নিশ্চুপ কেন? উল্লেখ্য যে, এদেরকে নিয়ে এর আগেও বরিশালের স্থানীয় পত্রিকায় ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে একাধিকবার সংবাদ প্রকাশিত হয়। কিন্তু তার ফলাফল শূন্য। স্থানীয়দের অভিযোগ, এরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই গাঁজা বাড়িতে মাদকের জমজমাট আসর বসায়। মহিউদ্দিন ও তানজিলের কারণে পবিত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বসেই নিয়মিত মাদকের আসর বসে।

এর মধ্যে দপদপিয়া ডিগ্রি কলেজ উল্লেখযোগ্য। সেখানে বেশ কয়েকবার পুলিশ অভিযান চালিয়ে তানজিল ও তার সহযোগী উজ্জল, সোহাগ, মুরাদ ৩ জনকে এসআই মহিউদ্দিন মাদকসহ গ্রেফতার করেন। নলছিটির দপদপিয়া ইউনিয়নবাসী এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। এ ব্যাপারে নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ শাখাওয়াত হোসেন জানান, এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।